"/> সংবাদ সারাক্ষণ | SK Domain Host
19 May 2020

মেঘরাজ বাপ্পার অভিনয়ের উপার্জিত টাকা দিয়ে দুইশত প্যাকেট ইফতার বিতরণ।।

রাজশাহী থেকে হানিফ খন্দকার :
আজ সোমবার সুবার্নলতা সংগীত বিদ্যালয় এর শিশু শিল্পী মেঘরাজ বাপ্পা,গানের পাশাপাশি ভালবাসে অভিনয় করতে,মাত্র ৪বছর বয়সে জননী গ্রন্থাগার ও সাংস্কৃতিক সংস্থার আয়োজনে মঞ্চনাটকে অভিনয় থেকে তার যাত্রাশুরু।ইতিমধ্যে প্রাই ৭/৮টি ছোট নাটিকায় সে অভিনয় করে,এর মধ্যে  অবসর জীবন, বাবার ভালবাসা, মাস্টার,এক খন্ড যুদ্ধ, কস্টের ফেরিওয়ালা, ইচ্ছা শক্তি নাটক উল্লেখযোগ্য প্রসংশা এবং কিছু অর্থ পায় সে টাকা/অর্থ দিয়ে গরীব ও অসহায়দের জন্য ইফতার এর আয়োজন করে এ ছোট্ট মনি মেঘরাজ বাপ্পা।  করোনা ভাইরাস সংক্রমণের দেশ ও দেশের মানুষ যখন হিমসিম খাচ্ছে,যে যার ক্ষমতা মোতাবেক গরীব অসহায় মানুষের সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছে, ঠিক তখনি শিশু অভিনেতা মেঘরাজ বাপ্পা তার অভিনিত নাটকের  উপার্জনের টাকা দিয়ে কিছু করতে চাই, মানুষের পাশে থাককে চাই আর তাই আজ ১৮/৫/২০২০ তারিখ সোমবার বিকাল ৫টায় প্রাই ২০০ জনের ইফতারের আয়োজন করে। তার থেকে ১০০ টি প্যাকেট বিতরণের জন্য জননী গ্রন্থাগার ও সাংস্কৃতিক সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা বই বন্ধু আমিনুল হক রিন্টুর হাতে তুলে দেয় শিশু শিল্পী মেঘরাজ বাপ্পা।তার ছোট্ট কমল হৃদয় ও আজ করোনা ভাইরাস(কোভিড-১৯)আক্রান্ত ও অসহায় মানুষের জন্য কাঁদে। মেঘরাজ বাপ্পা চাই মুক্ত আকাশ ও করোনা ভাইরাস মুক্ত পৃথিবী। এই ১০০ টি ইফতারির প্যাকেট জননী গ্রন্থাগার থেকে পথচারী, অটো রিক্সা ও উল্কা চালক,প্রতিবন্ধীদের হাতে তুলে দেয় বই বন্ধু আমিনুল হক রিন্টু। এ ছাড়াও ইফতারি বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন জননী গ্রন্থাগার এর সহ-সভাপতি মোসা: রিজিয়া খাতুন, লাইব্রেয়ান মোসা: জান্নাতুল ফেরদৌস সোহানা,সূবর্ণলতা সংগীত বিদ্যালয়ের সভাপতি মো:হানিফ খন্দকার,অংকুর মহিলা সমাজ কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোসা:তারিনা সুলতানা, প্রচার সম্পাদক ও সংগীত শিল্পী বিথীরাজ ও ছাত্র তাহাসুন তাজ
Share this
19 May 2020

গোদাগাড়ীর বাজার আবার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ

আব্দুল খালেক :
রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার সকল বাজার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে মসজিদের মাইক থেকে দোকানপাট বন্ধের নির্দেশ প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। পরে সকাল ৯টার পর নিয়মিত দোকান খোলার অংশ হিসেবে ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা আসলে আবারও মাইকিং করে তাদের দোকান খুলতে বারণ করা হয়। শুধু মাত্র ফার্মেসী, কাঁচা বাজার ও মুদিখানার দোকান খোলা থাকবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সকল প্রকার দোকান বন্ধ থাকবে বলে মাইকিং করে জানিয়ে দেয়া হয়।

এব্যাপারে গোদাগাড়ী ডাইংপাড়া ব্যবসায়ী বণিক সমিতির সভাপতি শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রশাসন ব্যবসায়ীদের কিছু শর্ত দিয়ে দোকান পাট খোলার অনুমতি দিয়েছিল কিন্তু ব্যবসায়ীরা তা যথাযথভাবে পালন করতে না পারায় পুন:রায় দোকানপাট বন্ধ করে দিয়েছে।

ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সার্বিক নিয়ম মেনে ক্রয়-বিক্রয় করার জন্য বণিক সমিতির পক্ষ থেকে আনসার নিযুক্ত করা হয়েছিল। তার পরেও ব্যবসায়ীরা নিয়ম মা মেনে নির্বিঘ্নে গা ঘেঁষা ঘেঁষি করে ও কোন প্রকার হ্যান্ডসেনিটাইজেশন এর ব্যবহার না করে ক্রয়-বিক্রয় করে যাচ্ছিল।

টিএন্ডটি ফ্যাশন বিগ বাজার এন্ড টেইলারিং সার্ভিসেস এর পরিচালক মামুনার রশিদ বলেন প্রশাসন যদি লকডাউনে দোকান পাট বন্ধ করে দেয় তাহলে দোকান ঘরের ভাড়া মওকুফের ব্যবস্থা করাসহ শ্রমিকদের প্রণোদনার ব্যবস্থা করতে হবে। তা না হলে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে ভাড়া চালানো ও শ্রমিকদের বেতন ভাতা দেয়া আমাদের পক্ষে কষ্টকর হয়ে যাবে।

এসব কারণেই বাজার বন্ধের ঘোষণা দেয় প্রশাসন। পবিত্র ঈদুল ফিতরের এ আগের কয়েকটি দিন ব্যবসা করতে না পেরে ব্যবসায়ীরা আর্থিক চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েগেল বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা। তবে ঈদের আগের আর কয়েকটি দিন ব্যবসা করার অনুমতি প্রদানের জন্য প্রশাসনের প্রতি আবারো অনুরোধ জানিয়েছেন দোকান মালিকগণ।

Share this

© 2020 SK Domain Host. All rights reserved.

Click Me